রবিনহুড

Robin Hoodরবিনহুড বিশ্বর সবচেয়ে আলোচিত এবং বির্তকিত একটি নাম।যে নামের সাথ জড়িয়ে আছে শ্রদ্ধা,ভালবাসা আর ভয়।অসহায় দরিদ্র মানুষের বন্ধু আর অত্যাচারি শাসকদের কাছে মূর্তিমান আতন্ক।রবিনহুড নামের কেউ ছিল কিনা তা নিয়ে অনেকে অনক মত আছে।ইংরেজি উপকথার বেশ জনপ্রিয় একটি চরিত্র। ছোট বাচ্চা থেকে বুড়ো সবাই এক নামে রবিনকে চেনে।রবিনহুড শুধু ইংরেজি সাহিত্যের নয় বিশ্বসাহিত্যর একটি অংশ হয়ে আছে।রবিনহুডকে নিয়ে তৈরি হয়েছে নাটক এবং সিনেমা।

ইংল্যান্ডের রাজা রিচার্ড,ত্রুসেডে অংশগ্রহণ করতে যাওয়ার আগে রাজ্যের ক্ষমতা প্রিন্স জনের হাতে তুলে দিয়ে যান।জন ক্ষমতা পেয়ে লোভে অন্ধ হয়ে যায়।প্রজাদের বেশি কর দিতে বাধ্য করে।কর দিতে না পারলে চলত অমানবিক নির্যাতন।নির্দোষ দুজন বন্দিকে বাচাতে একজন বনরক্ষিকে হত্যার মাধ্যমে রবিনের দস্যু জিবনের শুরু।ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামশায়ারের শেরউড বনে রবিন ও তার সহকারীরা ঘাঁটি গেড়েছিলো।তাদের পোষাক ছিল সবুজ রং এর।বন্ধু হিসেবে লিটল জন, মেইড ম্যারিয়ান,পাদ্রী ফ্রায়ার টাক ও রবিনের ভাগ্নে উইল স্কারলেট নাম উল্লেখযোগ্য।এদের মধ্যে লিটল জন ছিল রবিনের ছায়াসঙ্গি।নামে লিটল হলেও তার আকার ছিল দৈত্যের মত।দস্যুদের নেতৃত্ব নওয়ার সময় রবিনহুড বলেছিল নেতৃত্ব অর্জন করে নিতে হয়,জোড় করে তা হয় না।রবিনহুড তা অর্জন করে নিয়ে ছিল এবং একবাক্যে সবাই তার নেতৃত্ব মেনে নিয়ে ছিল।প্রজাদের অত্যাচারী প্রিন্স জন ছিল তার দুচোখের বিষ।রাজা রিচার্ডকে রবিনহুড শ্রদ্ধা এবং ভালবাসতো রাজার সিংহ হৃদয়ের জন্য।এক সময় রাজা রিচার্ডের অনুরোধে রবিনহুড এবং তার অনুচর সবাই রাজার সেনাবাহিনীতে যোগ দেয়।রাজা রিচার্ডের মারা যাওয়ার পর সিংহাসনে বসলো প্রিন্স জন।চারজন সঙ্গি নিয়ে আবার শেরউড বনে ফিরে আসে রবিন।অনুচরাও ফিরে আসতে থাকে একে একে।রবিনকে ধরার জন্য জন বিশাল বিশাল সেনাবাহিনী পাঠায় শেরউড বনে।অনেক অনুচর হারায় রবিন।মারিয়ানকে হারিয়ে একেবারে ভেঙ্গে পরে রবিন।রাজা জনের মৃত্যুর পর দল ভেঙ্গে দেয়।সাবই চলে গেলেও লিটল জন থেকে যায় রবিনহুডের সাথে।

কাজী আনোয়ার হোসেন সাথে আমি কারও তুলনায় যাব না।তুলনা করলে কাজীদাকে ছোট করা হবে।শুধু বলবো আমার কিশোরবেলা আনন্দময় হয়ে ছিল তাঁর জন্য সেবা প্রকাশনীর মাধ্যমে।আমার ছেলেবেলার অনেকটা অংশ জুড়ে আছে কাজীদা এবং সেবা।কি অদ্ভুদ সুন্দর ছিল সেই দিন গুলো।রবিনহুড বইটি কাজীদা সেরা কাজগুলোর একটি।রবিনহুড কিংবদন্তির মত।তাকে নিয়ে,তার বীবত্ব ও মহত্ত্বের নিয়ে লেখা হয়েছে অসংখ্য গান ও কবিতা।কেন রবিনহুড এত বিখ্যাত হয়েছিল?তার পরের কাহিনী জানতে হলে পড়তে হবে বইটি।

Write a Review with Facebook